চাপ যত বেশি মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে তত হাসি

0
17

বিনয়ের সঙ্গে, মিষ্টি হেসে তিনি এমনভাবে ‘না’ করে দেবেন, দ্বিতীয়বার আর তাঁকে একই অনুরোধ করা যায় না। নিজের চাওয়া পূরণ না হওয়ায় আবার তাঁর ওপর মন খারাপও হয় না। আয়ারল্যান্ড সফরের আগে কম-বেশি সব খেলোয়াড়ই সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক কথা বলে গেছেন, এক মাহমুদউল্লাহ ছাড়া। মুখে কুলুপ এঁটে থাকা সাকিব আল হাসান পর্যন্ত উড়ান ধরার আগে বিমানবন্দরে ‘দুটি’ কথা বলে গেছেন। মাহমুদউল্লাহ সেটিও বলেননি।

আয়ারল্যান্ড সফরের আগে মিরপুরে এক দিন অনুশীলন শেষে বারবার অনুরোধ করা হলে মিষ্টি হাসিটা ঠোঁটে ঝুলিয়ে দেন মাহমুদউল্লাহ, ‘এখন কোনো কথা বলব না।’ তাহলে কখন বলবেন? ‘ভালো খেললে বলব’, এ কথার ওপর কিছু বলার না থাকলেও বিশ্বকাপের সময় কথা তিনি বলবেন, এই আশা করাই যায়। মঞ্চ যত বড়, চাপ যত বেশি, তাঁর ব্যাটে যে তত বেশি হাসি!

আইসিসি টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মাহমুদউল্লাহর সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি (৩টি) এ কারণেই। ক্যারিয়ারের বড় অংশজুড়ে থেকেছেন পার্শ্বচরিত্র হয়ে। কিন্তু তিনিও যে নায়ক হতে পারেন, সব আলো নিজের দিকে কেড়ে নিতে পারেন, সেটি প্রমাণ করেছেন ২০১৫ বিশ্বকাপে টানা দুই সেঞ্চুরি করে। বিশেষ করে অ্যাডিলেডে স্বপ্নপূরণের ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেই সেঞ্চুরি আড়াল থেকে তাঁকে টেনে এনেছে পাদপ্রদীপের আলোয়।

ওয়ানডেতে তাঁর তিনটি সেঞ্চুরিই আইসিসি টুর্নামেন্টে। ২০১৫ বিশ্বকাপের দুই সেঞ্চুরির মতো ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে সেঞ্চুরিটাও একই রকম দুর্দান্ত। বছর দুয়েক আগে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের এক দশক পূর্তিতে প্রথম আলোকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে প্রতিকূল কন্ডিশন, বড় মঞ্চ আর চাপে দুর্দান্ত খেলার রহস্য কিছুটা উন্মোচন করেছিলেন মাহমুদউল্লাহ, ‘কোনো লক্ষ্য ঠিক করে খেলি না। সব সময়ই চেষ্টা করি। আল্লাহ হয়তো আমাকে একটু বেশি রহমত করেন। ব্যক্তিগতভাবে আমি ভাগ্যে ও ধর্মে বিশ্বাসী।’

২০১৫ বিশ্বকাপের আগে তামিম ইকবাল বলেছিলেন, তাঁর একটা স্বপ্ন হচ্ছে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম সেঞ্চুরিটা করবেন। স্বপ্নটা তাঁর পূরণ হতে হতেও হয়নি। নেলসনে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে আউট হয়েছিলেন ৯৫ রান করে। নিয়তি বোধ হয় ঠিক করে রেখেছিল, মাহমুদউল্লাহকে দিয়েই ভাঙা হবে এ অচলায়তন। তাঁর নিজের অবশ্য কল্পনাতেও ছিল না ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় মঞ্চে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম সেঞ্চুরিটা তিনিই করবেন, ‘আমি নিজেও চিন্তা করিনি। তবে স্বপ্নটা তো ছিলই। আগে সাত নম্বরে ব্যাটিং করতাম। বিশ্বকাপে সুযোগটা পাওয়ায় (ওপরে ব্যাটিং) বিশ্বাস ছিল, যেহেতু চারে ব্যাটিং করছি লম্বা ইনিংস খেলার সুযোগ আছে। এখানে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের (বাংলাদেশ দলের সাবেক কোচ) ভূমিকা আছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here